লন্ডন ডেস্ক :: লড়াই-সংগ্রামে একমাত্র ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী তার গৌরবময় ৫০ বছর অতিক্রম করছে। এই ঐতিহাসিক দিনকে স্মরণীয় করে রাখতে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যুক্তরাজ্য সংসদ গত ২৮শে অক্টোবর ২০১৮, রবিবার পূর্ব লন্ডনের কবি নজরুল সেন্টারে আয়োজন করে উদীচীর বর্ণাঢ্য সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের প্রথমেই শুরু হয় পুনর্মিলনী । দ্বিতীয় পর্বে প্রদর্শিত হয় প্রদীপ ঘোষের পরিচালনায় যশোরে উদীচীর জাতীয় সম্মেলনে সন্ত্রাসীদের বোমা হামলার উপর ভিত্তি করে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ‘ক্ষতচিহ্ন’ । অনুষ্ঠানের ৩য় পর্বে ‘বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতা ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী আন্দোলন সহ বিভিন্ন গণআন্দোলনে উদীচীর ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভা । বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যুক্তরাজ্য সংসদের গবেষণা সম্পাদক ডঃ হাসনীন চৌধুরীর উপস্থাপনায় মুল প্রবন্ধ পাঠ করেন সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সাগুফতা শারমীন তানিয়া । এতে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বিশিষ্ট কলামিস্ট ও ভাষা আন্দোলনের অমর গানের রচয়িতা জনাব আব্দুল গফফার চৌধুরী, উদীচী কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি রফিকুল আহসান খান জিন্নাহ, উদীচী যুক্তরাজ্যের সভাপতি হারুনুর রশিদ, যুক্তরাজ্য উদীচীর প্রাক্তন সভাপতি ডলি ইসলাম, মাহমুদ এ রউফ, যুক্তরাজ্য কমিউনিস্ট পার্টির নেতা আবেদ খান সহ স্থানীয় কাউন্সিলর বৃন্দ।

বক্তব্যে বক্তারা বাংলাদেশের সকল সংকটে সংগ্রামে উদীচীর ভূমিকা এবং উদীচী গঠনের সময়কাল ও তৎকালীন রাজনৈতিক অবস্থা নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনা হয় সাংস্কৃতিক মুক্তির জন্য উদীচীর করণীয়। চতুর্থ পর্ব শুরু হয় সত্যেন সেন স্কুল অফ পারফর্মিং আর্টসের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় নাচ, গান এবং সব শেষে যুক্তরাজ্য উদীচীর পরিবেশনা করে বিভিন্ন ঐতিহাসিক সময়ে তৈরী হওয়া গণসঙ্গীতের সংযোজনায় গীতি আলেখ্য। গোপাল দাসের পরিচালনায় গীতি আলেখ্যে অংশগ্রহণ করেন যুক্তরাজ্য উদীচীর সংগীত বিভাগের সকল শিল্পী বৃন্দ।