বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও, দুর্ভোগ কমেনি রংপুরের পাঁচ উপজেলার লক্ষাধিক মানুষের। বানের পানিতে সবকিছু বিলীন হলেও, জুটছেনা দু’বেলা খাবার। এতে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন তারা। তাই জীবন বাঁচাতে, সরকারি সহযোগিতার দিকে তাকিয়ে আছেন, বানভাসি মানুষগুলো। গত ক’দিনের বর্ষন আর উজানের ঢলে প্লাবিত রংপুরের তিন উপজেলার অন্তত দেড়শ’টি গ্রাম। এখন পানি কিছুটা নামতে শুরু করলেও– বেড়েছে দুর্ভোগ। বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন পীরগাছার শীবদেব চর, চর ছাওলা, জুয়ন ছেত্রার চর, গংগাচড়ার বিনবিনিয়ার চরসহ চরাঞ্চল ও নীচু এলাকার মানুষেরা। ঘর-বাড়ি, ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায়, দিশেহারা বানভাসী কৃষকরা।

ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে এখন দেখা দিয়েছে খাবার সংকট। পানিতে সবকিছু ভেসে গেলেও, বানভাসী মানুষগুলোর জুটছেনা দু’বেলা খাবার। তাই তাকিয়ে আছে সরকারি সহায়তার দিকে। কিছু এলাকায় সরকার ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ত্রান বিতরণ করলেও, বেশিরভাগ এলাকায় পৌছেনি সরকারের সহায়তা কার্যক্রম। তবে পর্যায়ক্রমে ত্রাণ কার্যক্রম বাড়ানোর কথা বললেন জেলা প্রশাসক। অর্ধাহারে-অনাহারে দিনকাটা বানভাসী মানুষগুলোর সহায়তায় পর্যাপ্ত বরাদ্দসহ দ্রুত ত্রাণ কার্যক্রম সরবরাহ জরুরি হয়ে পড়েছে। নইলে এই দুর্ভোগ– দুর্যোগে রুপ নিতে পারে বলে আশংকা করছেন অনেকেই। এস. এ টিভি